Sangeet shastra/Byakaran

তবলা:-ভারতীয়  সঙ্গীতে তালবাদ্য বা চামড়ার বাদ্যযন্ত্রে,তবলাই প্রধান।ডান হাতে বাজান হয় যেটি,সেটি তবলা।বাঁয়া বা ডুগি বলা হয় তাকে,যেটি বাঁ হাতে বাজান হয়।

বাঁয়ার কাঠামো তৈরি হয় মাটি,তামা,পিতল,সীসা দিয়ে।একে হাঁড়ি বা কুঁড়ী বলে।এর ভিতর ফাঁপা,চামড়া দিয়ে মুখ ঢাকা থাকে।একে ছাউনি বা পুড়ী বলে। উপরে গোল কালো অংশটিকে গাব বা স্যাহী বলে।পুড়ীর চারদিকে এক ইঞ্চি চামড়ার পট্টিকে চাঁটি বা কিনার বলে।পুড়ীর চারধারে চামড়ার যে বিনুনী থাকে তাকে গজরা বা পাগড়ী বলে।গাব ও চাঁটির মাঝের অংশকে ময়দান বা লব বলে।


  

পুড়ী কষার জন্য কিছু বাঁয়াতে পিতলের আংটির মত ডোরি লাগানো থাকে,কিছুতে চামড়ার বদ্ধি লাগানো হয়।এই বদ্ধি বা ছোট হল চামড়ার সরু ফিতের মত,যা গজরা বা গুড়রীর মধ্য দিয়ে লাগানো হয়।বাঁয়ার নীচে চামড়ার মালার মতো অংশকে গুড়রী বা বেষ্টনী বলে।


তবলা কাঠামোকে কাঠ বা লকড়ী বলে।এটি তৈরি হয় আম,কাঁঠাল, চন্দন, নীম,শীষম কাঠ দিয়ে। এর ভিতর ফাঁপা। উচ্চতা এক ফুট।বাকী বৈশিষ্ট্য সব বাঁয়ার মত।বদ্ধির মধ্যে দুই ইঞ্চি লম্বা কাঠের আটটি গোল টুকরো লাগানো থাকে,তাকে গুলি বা গাট্টা বলে।এগুলি ঠুকে ঠুকে সুর মেলানো হয়।  



মন্তব্য

এই ব্লগটি থেকে জনপ্রিয় পোস্টগুলি

Sangeet Byakaran

Sangeet Byakaran

Sangeet shastra/Byakaran