পোস্ট

অক্টোবর ২৮, ২০২০ থেকে পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে

Sangeet Byakaran

ভারতীয় সঙ্গীতের উত্তরমধ্যকালে ধ্রুপদ গায়কগণ প্রধানতঃ চারটি পদ্ধতিতে ধ্রুপদ পরিবেশন করতেন,একে বাণী বলে।এগুলি ডাগুরবাণী,খান্ডারবাণী,গওহর বা গোবরহার বাণী নওহর বাণী নামে পরিচিত।প্রাচীনকালে ভারতীয় শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের পাঁচটি গায়নশৈলীর উল্লেখ পাওয়া যায়  শুদ্ধা-সরল,অনাড়ম্বর,সুললিত স্বরের গীত।ডাগুরবাণী পদ্ধতির সঙ্গে এর মিল আছে।এই রীতিতে গমক,কণ,মীড় প্রয়োগ হতনা। ভিন্না-সূক্ষ্ম,গমকযুক্ত,বক্র গীত।এর সঙ্গে গওহর বাণীর মিল আছে। গৌড়ী-গম্ভীর প্রকৃতির গীত।এর সঙ্গে খান্ডারবাণীর মিল আছে। সাধারণী-এই রীতিতে মন্দ্র সপ্তকে কম্পিত  ও দ্রুত সুরবিন্যাস করে ই বা উ কার যোগে গাওয়া হয়। বেসরা-এতে দ্রুত লয়ে আরোহ-অবরোহ করা হয়।এর সঙ্গে নওহর বাণীর মিল আছে।স্বরের বক্রগতি এতে দেখা যায়।