পোস্ট

অক্টোবর ১৪, ২০২০ থেকে পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে

Sangeet Shastra/Sangeet Byakaran

খ্রীষ্টপূর্ব শতাব্দীতে  ব্রহ্মা ভরত নামে এক সঙ্গীতশাস্ত্রীর রচনা থেকে,খ্রীষ্টীয় শতাব্দীর নাট্যশাস্ত্রকার ঋষি ভরত   উপাদান সংগ্রহ করে নিজের নাট্যশাস্ত্র রচনা করেন।এই ঋষি ভরত খ্রীষ্টীয় দ্বিতীয়-পঞ্চম শতাব্দীর মধ্যে আবির্ভূত হন বলে মনে করা হয়।তাঁর বইতে নাটক ছাড়াও সঙ্গীত সম্বন্ধেও আলোচনা আছে। গুপ্ত  সম্রাট সমুদ্রগুপ্তের মুদ্রায় তাঁর বীণাবাদনরত মূর্তি দেখা যায়।এ সময় যে সঙ্গীতচর্চা হত তা বোঝা যায়।এ যুগে ভারতীয় সঙ্গীতে শক্ জাতির প্রভাব পড়ে।শার্ঙ্গদেব তুরস্কতোড়ী,তুরস্কগৌড়,শক্ ইত্যাদি রাগের উল্লেখ করেছেন।এ যুগের কবি কালিদাস তাঁর "কুমারসম্ভব" কাব্যে কৈশিক রাগ,গীতমঙ্গল মঙ্গল প্রবন্ধ গীতির উল্লেখ করেছেন। "বিক্রমোর্বশী"  নাটকে ককুভ রাগ,জাম্ভালিকা,চর্চরী,দ্বিপদিকা প্রবন্ধগীতির উল্লেখ করেছেন। খ্রীষ্টীয় প্রথম বা দ্বিতীয় শতকে তামিল গ্রন্থ "পুরনানুরু" ও "পত্তু পত্তু" গ্রন্থে যুদ্ধের ঢাক,বিচারের ঢাক,যজ্ঞের ঢাকের উল্লেখ আছে। "তিবাকরম"( জৈন কোষগ্রন্থ ),"পারিপাডল"( তামিল গ্রন্থ )  গ্রন্থেগুলিতে যথাক্রমে আছে প্রাচীন দ্রাবিড় সঙ্গীতের পরিচয় এবং সাত স্