পোস্ট

সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০ থেকে পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে

Sangeet Shastra/Sangeet Byakaran

আশ্রয়রাগ- হিন্দুস্থানী সঙ্গীতের প্রচলিত রাগগুলি কোনো না কোনো ঠাটের অন্তর্গত।প্রত্যেক ঠাটের এমন একটা করে রাগ আছে,যার নামে ঠাটের নামকরণ করা হয়েছে।সেই রাগগুলোই ঠাটগুলির আশ্রয়রাগ।যেমন আশাবরী ঠাট থেকে আশাবরী রাগের উৎপত্তি।তাই আশাবরী রাগ আশাবরী ঠাটের আশ্রয়রাগ।   জনকঠাট- যেসব ঠাট থেকে রাগের উৎপত্তি হয় তা হল জনকঠাট।হিন্দুস্থানী সঙ্গীতে প্রচলিত দশটি ঠাটই জনকঠাট। আরোহ- কিছু স্বরসমষ্টি নীচ থেকে যখন আরোহণক্রমে উপরে ওঠে তখন তাকে আরোহ বলে।যেমন-সা রে গা মা পা ধা নি র্সা। অবরোহ- কিছু স্বরসমষ্টি যখন অবরোহণক্রমে উপর থেকে নীচে নামে তখন তাকে অবরোহণ বলে।যেমন র্সা নি ধা পা মা গা রে সা। রাগের জাতি- রাগের আরোহ-অবরোহে সর্বদা সমান সংখ্যক স্বর ব্যবহত হয়না।পাঁচটি/ছয়টি/সাতটি স্বর ব্যবহৃত হয়।একে রাগের জাতি বলে।তিন জাতির রাগ হয় : সম্পূর্ণ -যে রাগের আরোহ-অবরোহে সাতটি করে স্বর ব্যবহার হয়।যেমন ভৈরবী রাগ।এটি হল সম্পূর্ণ-সম্পূর্ণ জাতি। ষাড়ব/খাড়ব-যে রাগের আরোহ-অবরোহে ছয়টি করে স্বর ব্যবহার হয়।যেমন মারবা।এটি ষাড়ব-ষাড়ব/খাড়ব-খাড়ব জাতি।'প' বাদ এই রাগে। ঔড়ব-এতে পাঁচটি করে স্বর ব্যবহার হয়।যেমন ভূপালী,'ম' ও 'ন