পোস্ট

অক্টোবর ২০, ২০২০ থেকে পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে

Sangeet Shastra/Sangeet Byakaran

বায়ুপুরাণের ৮৬-৮৭ অধ্যায়ে সঙ্গীতের স্থান,বর্ণ,অলঙ্কার, মন্দ্র,মধ্য,তার অনুযায়ী স্বর ও কালের উল্লিখিত আছে।   মার্কন্ডেয় পুরাণের ২৩ অধ্যায়ে সাত স্বর, গ্রাম,মূর্চ্ছনা,ঊনপঞ্চাশটি তান,লয় ইত্যাদির উল্লিখিত আছে। বৃহদ্দেশী গ্রন্থে প্রথম 'রাগ' শব্দের উল্লেখ পাওয়া যায়। এতে গ্রাম ও মূর্চ্ছনার বিস্তৃত আলোচনা  আছে।এটি দেশী রাগের সঙ্কলন গ্রন্থ।  মধ্যকাল- এই সময়কে দুভাগে ভাগ করা যায়,পূর্বমধ্যকাল ও উত্তরমধ্যকাল।মার্গসঙ্গীত  সপ্তম শতাব্দীর মধ্যে লুপ্ত হয়।এরপর দেশী রাগের গ্রহ,অংশ,গ্যাস,উপন্যাস,অল্পত্ব,বহুত্ববাদী,ষাড়বত্ব,ঔড়বত্ব,মন্দ্র,মধ্য,তার ইত্যাদি লক্ষণগুলিকে যুক্ত করা হয়।এভাবে দেশী সঙ্গীত কুলীন হয়ে ওঠে।দেশী সঙ্গীতের অন্য ধারা লোকসঙ্গীত বা গ্রাম্যসঙ্গীত। পূর্বমধ্যকাল-এর সময় অষ্টম থেকে দ্বাদশ শতাব্দী পর্যন্ত।জয়দেব-এর "গীতগোবিন্দ"  ও শার্ঙ্গদেব-এর " সঙ্গীত রত্নাকর" গ্রন্থ থেকে জানা যায় যে এখন যেমন রাগ ও আলাপ গাওয়া হয় তেমন তখন প্রবন্ধ গাওয়া হত।খ্রিস্টীয় সপ্তম-অষ্টম শতকে দক্ষিণ ভারতে ভক্তি আন্দোলন হয়।এ সময় বিষ্ণু ও শিবের মহিমা প্রচার হত গানের মাধ্যমে।ত্রিবাঙ্কুরে(প্রাচীন চের র