পোস্ট

নভেম্বর ৫, ২০২০ থেকে পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে

Sangeet Shastra/Sangeet Byakaran

  প্রাচীনকালে শাস্ত্রকাররা ব্রহ্মা,শিব,সরস্বতী ও নারদকে সঙ্গীতের উৎস রূপে কল্পনা করেছেন।ভৈরব রাগকে শিবের রূপ ভেবেছেন।পিলু রাগে রাধাকৃষ্ণ,সরস্বতী রূপ ললিত রাগে।শিবের ডমরু থেকে সঙ্গীত ও কাব্যের উদ্ভব হয়েছে বলে মনে করা হয়।সঙ্গীতের মাধ্যমে  মানুুষ ভগবানের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করেছে।সঙ্গীতে সুরই প্রধান।কথার অর্থ বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ না হলেও হয়। ভারতীয় সঙ্গীত আরব,পারস্য,মিশর,গ্রীস দেশে ছড়িয়ে পড়ে।তা ছিল বেদকে অনুসরণ করে তৈরি সঙ্গীত।পরে মুসলিম সংস্কৃতির প্রভাব পড়ে।আমীর খসরু ধ্রুপদের সঙ্গে পার্সী গজল মিশিয়ে খেয়াল রচনা করেন।ভারতীয় সঙ্গীতের কল্যাণ রাগের সঙ্গে পার্সী রাগ মিশ্রিত করে ইমন রাগ রচনা করেন। মিঞা গুলাম নবী ও তাঁর স্ত্রী শোরী অনেক টপ্পা গান তৈরি করেন।সনদপিয়া ও কদরপিয়া ছিলেন ঠুংরি গানের স্রষ্টা।ভারতীয় শিল্পের উদ্দেশ্য হল সমাজের কল্যাণ সাধন।বিভিন্ন ধরনের গানের মাধ্যমে ভগবানের বিভিন্ন রূপের বর্ণনা দেওয়া হয়েছে।তাঁর বিভিন্ন রূপের বন্দনা করা হয়েছে।