Sangeet Shastra/Sangeet Byakaran

আত্মার স্ফূর্তি সংঘটিত হয় সঙ্গীতের মাধ্যমে।ফলে আত্মবিকাশ ঘটে,যা মানুষের লক্ষ্য।মানুষ সেই চেষ্টাই করে।এজন্য সঙ্গীতের উদ্ভব।ঋষিগণ সঙ্গীতকে দুটি ভাগে ভাগ করেছিলেন।মার্গসঙ্গীত,যা মানুষকে ভগবানের দিকে আকৃষ্ট করে,তাঁর চিন্তায় নিমগ্ন করে।পন্ডিত দামোদর মিশ্রের মতে,এই সঙ্গীত ব্রহ্মার অভিলাষ পূর্ণ করে এবং শিবের সামনে গীত হয়।

আবার পৃথিবীর মানুষের মন ভালো করার জন্য দেশী সঙ্গীতের ব্যবস্থা। ভারতীয় সঙ্গীতের উদ্দেশ্য দুটোই।প্রতি স্বরকে এক এক দেবতার রূপ কল্পনা করা হয়েছে।স-পৃথিবী,র-বরুণ,গ-অগ্নি,প-সূর্য।বলতে গেলে পঞ্চতত্বকে মনে করা হয়েছে।রাগের নামকরণ করা হয়েছে দেবতার নামে।যেমন-দূর্গা,ভৈরবী,ভৈরব।শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের মাধ্যমে শুধু মন আনন্দিতই হয়না,মলিনতাও দূূর হয়।

মন্তব্য

এই ব্লগটি থেকে জনপ্রিয় পোস্টগুলি

Sangeet Shastra/Sangeet Byakaran

Sangeet Shastra/Sangeet Byakaran

Sangeet Shastra/Sangeet Byakaran