Sangeet Byakaran

সুরবাহার 

 মনে করা হয় যে অষ্টাদশ শতাব্দীর প্রথমার্ধে লক্ষ্নৌএর ওস্তাদ গোলাম মহম্মদ খাঁ এই যন্ত্রটির আবিষ্কার করেন। এটি সেতারের বড় রূপ। ধ্রুপদের সঙ্গে এটি বাজানো হত বলে,এর তেমন প্রচার নেই। 

নীচের অংশ তুম্বা, লাউএর খোল দিয়ে তৈরী। তুম্বার উপরিভাগের কাঠের আচ্ছাদন তবলী বলে।তার নীচে একটি কাঠের টুকরোতে তারগুুুলিকে যোগ করা হয়, একে লঙ্গোট বলে।তবলীর উপর দুটি ছোট ও বড় ব্রীজ থাকে, তাদের সওয়ারী বলে।ছোট ব্রীজের উপর দিয়ে তরব বা অনুরণণের তার এবং বড় ব্রীজের উপর দিয়ে প্রধান তারগুুুলিকে নিয়ে যাওয়া হয়।







তুম্বার উপরের অংশ হল দন্ড,ফাঁপা কাঠের।এর উপরিভাগের কাঠের আচ্ছাদনকে পটরী বলে।দন্ডের একেবারে উপর দিকে প্রধান তার বাঁধার জন্য ৬টি,তরবের তার বাঁধার জন্য ১১/১৩ টি ও চিকারীর বাঁধার জন্য ২টি খুঁটি থাকে। তারের সংখ্যা খুঁটি অনুযায়ী। দন্ডের শেষপ্রান্তে ২টি হাড়ের অংশ থাকে, একটির উপর দিয়ে তারগুুুলি যায়, তা হল অটি এবং যার মধ্য দিয়ে যায়, তাকে তারগহন বলে।দন্ডের উপর পিতল বা সিলভারের ধনুকের মতো দেখতে ১৯ টি পর্দা মুগা সুতো দিয়ে আটকানো থাকে।       

মন্তব্য

এই ব্লগটি থেকে জনপ্রিয় পোস্টগুলি

Sangeet Byakaran

Sangeet Byakaran

Sangeet shastra/Byakaran